বিশ্বকাপে ফিরতে সালাহর চিকিৎসা হবে স্পেনে

বিশ্বকাপে ফিরতে মরিয়া মোহাম্মদ সালাহ। মিসরের প্রাণভোমরা প্রথম ম্যাচ থেকেই মাঠে নামতে চান। কাঁধের চিকিৎসা করাতে তাই স্পেন যাচ্ছেন তিনি নিজেকে ‘যোদ্ধা’ বলেছেন মোহাম্মদ সালাহ। চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে কাঁধে চোট পেয়ে বিশ্বকাপকে অনিশ্চয়তায় ফেললেও যুদ্ধ করেই সেই অনিশ্চয়তা দূর করতে চান এই মিসরীয় তারকা। সময়ের সঙ্গে লড়ে বিশ্বকাপ নিশ্চিত করতে এ সপ্তাহে স্পেন যাচ্ছেন—সেখানেই হবে তাঁর চোট কাটিয়ে মাঠে ফেরার অভিযান।

সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে দুর্দান্তই ছিলেন সালাহ। ৫২ ম্যাচে করেছেন ৪৪ গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগে লিভারপুলের স্বপ্নসারথি সালাহ ফাইনাল খেলতে পেরেছেন মাত্র ৩০ মিনিট। রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোসের সঙ্গে সংঘর্ষে কাঁধে চোট পেয়ে মাঠ থেকে উঠে যাওয়ার পরই বোঝা গেছে লিভারপুলের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হয়ে ছিলেন তিনি। বিশ্বকাপে তিনি স্বপ্ন দেখাচ্ছেন মিসরকে। ১৯৯০ সালের পর এই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের চূড়ান্তপর্বে জায়গা করে নেওয়া আফ্রিকার এই দেশটির পতাকা পুরোপুরিই সালাহর হাতে। মিসরের জন্যই বিশ্বকাপের আগেই পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠাটা বড় বেশি জরুরি এই তারকার।

মিসর ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (ইএফএ) তত্ত্বাবধানেই স্পেনে যাচ্ছেন সালাহ। সেখানে সালাহর সঙ্গে থাকবেন লিভারপুলের একজন মেডিকেল সহযোগী। শনিবার কিয়েভের ফাইনালে চোট পাওয়ার পর পরদিন রোববার থেকেই শুরু হয়েছে সালাহর চিকিৎসা।

আগামী ১৫ জুন উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মিসরের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হবে। গ্রুপ ‘এ’ তে সালাহদের অন্য প্রতিদ্বন্দ্বিরা হলো—রাশিয়া এবং সৌদি আরব। সালাহ অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। চোটের দিনই এক টুইটার-বার্তায় তিনি নিজের ফেরার আশাবাদ শুনিয়েছিলেনস, ‘‘রাতটা কঠিন ছিল। কিন্তু আমি যোদ্ধা। প্রতিকূলতা থাকলেও রাশিয়া বিশ্বকাপে আপনাদের গর্বিত করতে আমি আত্মবিশ্বাসী।’

আপনার মন্তব্য করুন...