অবসর সময় কাটানোর সেরা ৫ টি উপায় – বদলাবে আপনার ভবিষ্যৎ

নাই কাজ তো খই ভাজ এই কথাটা আগে আমরা অনেক শুনতাম। কিন্তু এখন আমাদের কারও খই ভাজা নিয়ে মাথা নষ্ট করার মত সময় নাই। কারণ প্রযুক্তির এই যুগে আমাদের অবসর বা ছুটির সময় কাজের কোন অভাব নাই। এই ধরুন সারা দিন মোবাইলে কথা বলা, ল্যাপটপে বা মোবাইলে গেম খেলা, চ্যাটিং করা, টিভি দেখা আর টাইম পাস করার দুর্দান্ত উপকরন ফেসবুক আর ইউটিউব তো আছেই। ফেসবুকে স্ক্রলিং করে আর ইউটিউবে নাটক সিনেমা দেখেই ছুটি শেষ। কিন্তু আপনি এই লেখাটা পড়ছেন তার মানে আপনি অযথা সময় নষ্ট করার দলে নাই। কিন্তু নিশ্চয় আপনার মনের মধ্যে উকি ঝুঁকি দিচ্ছে অবসর সময় কি করা উচিৎ বা অবসর সময়ে কি করা যায়?

আপনার স্কুল বা কলেজের পরীক্ষা কি শেষ? আপনি যদি ছাত্র হয়ে থাকেন তাহলে পড়ালেখার মাঝের কোন ছুটি আর কর্মজীবী হয়ে থাকলে কাজের মাঝের অবসর। যে ধরনের অবসর বা ছুটি হোক না কেন, আপনি অবসরে কি করতে চান তা ঠিক করতে দ্বিধায় পড়ে গেছেন? আমাদের অনেকের ক্ষেত্রে যা হয় তা হল অবসর সময়টা কীভাবে কাটাবো এটা ভেবে বের করতে করতে ছুটি শেষ!

তাই পড়ালেখা বা কাজের মাঝের অবসর দিন, সপ্তাহ এবং মাসগুলি কিভাবে ব্যয় করা যায় এবং একটু পরিকল্পনা করা থাকলে অবসরের এই কাজগুলো কীভাবে আপনার ভবিষ্যৎ জীবনকে পরিবর্তন করে দেবে তা নিয়েই এই লেখা। তাছাড়া নিজেকে এই ৪ টি প্রশ্ন করুন যার ভিতরে লুকিয়ে আছে আপনার এই বছরের সফলতা।

অবসর সময় কাটানোর চমৎকার কিছু উপায় 

১.শুরু করুন নিজের একটা ব্লগ বা ইউটিউব চ্যানেল অথবা ওয়েব সাইট

আপনার কি এমন কোন কাজে আগ্রহ আছে যা আপনি একান্ত সময়গুলোতে করতে চান বা করেন। কিন্তু বই খাতা বা কাজের সাথে যুদ্ধ করতে করতে আগ্রহের বা শখের কাজটি ঠিক ঠাক করা হয়ে ওঠে না। তাহলে আজই আপনি মনঃস্থির করুন এবং এই ছুটির সময়ে বা সারাদিনের কাজের অবসরে  শখের কাজটিতে সময় দিন। আপনার আগ্রহের বা শখের কাজটি হতে পারে ভ্রমণ, রান্না করা, শরীরচর্চা, পশুপাখীদের যত্ন নেওয়া, বাগান করা বা পোশাক ডিজাইন করা – যা ই হোক, আপনি আপনার কাজটি কোন ব্লগে বা ওয়েবসাইটে লেখা শুরু করুন অথবা ক্যামেরা বা মোবাইল দিয়ে ধারন করে ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করুন।

দেখবেন একদিন আপনার এই শখের কাজই আপনার বাড়তি আয় উপার্জনের চমৎকার একটা মাধ্যম হয়ে উঠবে। এই ডিজিটাল দুনিয়ায় মানুষ শুধু তাঁদের শখকে উপার্জনের উৎস বানিয়েছে এমন নজির আছে লক্ষ লক্ষ ।

তাছাড়া মানুষকে দেখানোর মত আপনার কাছে যদি অনেক ছবি থাকে বা কোন একটা বিষয়ের উপর আপনার আগ্রহ বা দক্ষতা থাকে, তবে আর দেরি না করে আজই শুরু করুন আপনার একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট, ব্লগ বা ইউটিউব চ্যানেল? একটি সুন্দর দেখতে ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট / ইউটিউব চ্যানেল ভবিষ্যতে একটি সম্পদ হয়ে উঠবে, যেটা এই মুহূর্তে আপনার চিন্তাতেও নাই। আর ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করার জন্য আপনাকে অনেক কোডিং জানতে হবে না। আপনি ফ্রি ডোমেইন/হোস্টিং দিয়েই শুরু করতে পারেন ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট বা ব্লগ। অথবা চাইলে শুধু মাত্র ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে এবং ফ্রি ওয়ার্ড প্রেস থিম দিয়েই শুরু করুন আপনার অনলাইনে পথচলা। কিছুদিন পরে নাহয় দেখে শুনে বুঝে এলিগেন্ট-থিম অথবা থিম-ফরেস্ট থেকে একটি প্রিমিয়াম থিম কিনে নিজের ওয়েবসাইটে নিয়ে আসবেন প্রফেশনাল লূক।

ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট বা ব্লগ অথবা ইউটিউব চ্যানেল কীভাবে শুরু করবেন তা জানার জন্য আপনাকে টাকা খরচ করে কোর্স করতে হবে না। শুধু গুগলে বা ইউটিউবে সার্চ করুন, দেখবেন হাজার হাজার মানুষ তাদের ওয়েব সাইটে বা ইউটিউব চ্যানেলে আপনার প্রশ্নের সব উত্তর আগেই দিয়ে রেখেছে।

২. কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করুন

এখন যদি আপনার পড়ালেখার মাঝে সেমিস্টার বা বছর শেষের বিরতি হয়ে থাকে তাহলে আপনি সম্ভবত এখন বাড়িতে আছেন এবং খাটে শুয়ে শুয়ে অবসর দিনগুলো পার করছেন। আপনার হয়তো এখন কোন কাজ নেই এবং তেমন খরচও নেই তাই অর্থ উপার্জনের পরিকল্পনাও নেই।

কিন্তু আপনি কি জানেন এই অর্থ উপার্জনের চাপ না থাকায় এই সময়টা আপনার ভবিষ্যতের কাজের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য একটি দুর্দান্ত সময়। এই পর্যায়ে এসে আপনি যে কোন প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নশীপ করতে পারেন বা স্বল্প সময়ের জন্য খন্ডকালিন চাকরি করতে পারেন। কারণ তাহলে আপনি বুজতে পারবেন আপনি কি কাজ করতে পছন্দ করেন এবং আরও কোন কোন বিষয়ে আপনার পড়ালেখা করা উচিৎ। তাই অবসর সময় কাটানোর সেরা আর একটি উপায় হতে পারে ভবিষ্যতের কাজের জন্য অভিজ্ঞতা অর্জন করা।

৩.দ্বিতীয় ভাষা শিখুন

ইংরেজিতে একটা প্রবাদ আছে “More languages equal more opportunities“ মানে আপনার যতগুলো ভাষা জানা থাকবে আপনার সামনে ততো বেশি সুযোগ থাকবে এবং আপনার ক্যারিয়ারে উন্নতি করার সম্ভাবনা ততো বেশি। অবসর সময় কাটানোর সেরা আর একটি উপায় হল নতুন একটি ভাষা শেখা

চিন্তা করে দেখুন এখন আমাদের পৃথিবী কতটা হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। আর এই পৃথিবীতে অন্য দেশের মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারাটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। ভাষা দক্ষতা আপনার ভবিষ্যতের কর্মজীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আর একটি নতুন ভাষা আপনার সামনের দিগন্তকে করবে আরও বিস্তৃত। পাশাপাশি ভাষা শেখা  একটি মজার বিষয় এবং আপনার মস্তিষ্কের জন্য ও বেশ উপকারি ব্যায়াম। আর আপনি যদি বিদেশে পড়ালেখা বা কাজের জন্য যেতে চান তাহলে সেই দেশের ভাষা অথবা ইংরেজি ভাষা শেখাটা আপনার জন্য অবশ্য দরকারি একটি বিষয়। তাই দেরি না করে শুরু করুন দ্বিতীয় ভাষা শেখা। তাই সে ইংরেজি, চাইনিজ, জাপানিজ, পর্তুগিজ, হিন্দি আরবি, স্প্যানিশ বা ফ্রেঞ্চ যে ভাষাই হোক না কেন।

৪. স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে কাজ করুন

অবসর সময় কাটানোর আরেকটি দুর্দান্ত উপায় হল যে কোন একটি স্থানীয় বা আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনের সাথে যোগ দেয়া। কারণ স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে কাজ করলে আপনার সামনে জীবনের নতুন দিগন্ত খুলে যাবে এবং আপনি জীবন সুধার গভীর থেকে রসাস্বাদন করতে পারবেন।

বন্ধু বান্ধব এবং পরিবার ছেড়ে আসা আপনার জন্য হয়তো কঠিন কাজ হবে, কিন্তু যদি পারেন তাহলে এটি সম্ভবত আপনার জীবনে সবচেয়ে ফলপ্রসূ অভিজ্ঞতা হবে। আপনি একটি নতুন জগৎ সম্পর্কে জানতে পারবেন, একটি নতুন জীবনধারা এবং জীবনের অর্থ খুজে পাবেন নতুন করে। আপনার ভাবনার জগত দ্রুত বড় হয়ে উঠবে এবং আপনি সত্যিকার অর্থে পরিপক্ক হবেন। স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে আপনি কোন ছিন্নমূল শিশুদের পড়ালেখা নিয়ে কাজ করতে পারেন অথবা চলে যেতে পারেন কোন প্রত্যন্ত গ্রামঞ্চলে অসহায় দুঃখী মানুষের ভাগ্য উন্নায়নে।

৫. এমন একটা কাজ শুরু করুন যা আপনি কখনো করেন নি

“If you want the things you’ve never had, then you have to do the things you’ve never done.” “যদি আপনি জীবনে এমন কিছু চান যা আপনার কখনও ছিল না তবে আপনাকে এমন কিছু করতে হবে যা আপনি আগে কখনো করেননি।” এই সময়টা হয়তো আপনার জন্য সেরা সময় যখন আপনি আপনার আরামের জায়গা থেকে বের হয়ে আপনার স্বপ্নের পিছে ছুটবেন। একটা নির্দিষ্ট গণ্ডির বাহিরে গিয়ে চিন্তা করা বা জীবন কে সম্পূর্ণ নতুন ভাবে দেখতে গেলে অনেক সাহস লাগে, কিন্তু আপনি সবসময় যে ব্যক্তিটি হতে চেয়েছিলেন তা হয়ে উঠতে আপনাকে এটা করতে হবে। সারা দেশ ঘুরে বেড়াতে চান বা নিজেকে সবার থেকে এগিয়ে থাকতে দেখতে চান? তাহলে এখনি কাজ শুরু করুন, যে কাজটি আপনার ভাগ্য পরিবর্তনে সাহায্য করবে। করুন এমন কোন কাজ যা আপনি আগে কখন করেননি হয় ভেবেছিলেন কিন্তু করবেন করবেন করে আজো করা হয়ে ওঠেনি।

তাই ছুটি কাটানো বা অবসর কাটানো নিয়ে যারা দ্বিধা-দন্দে আছেন তারা উপরের অবসর সময় কাটানোর উপায় গুলো থেকেযে কোন একটি অথবা একাধিক কাজ শুরু করুন। দেখবেন আবসর সময়ে করা আপনার এইকাজ গুলো কীভাবে আপনার ভবিষ্যৎ বদলে দেয়। আর আপনার আসে পাশের যারা এমনটি ভাবে  যে অবসর সময় কি করা উচিৎ বা অবসর সময়ে কি করা যায় অথবা অবসর সময় কাজে লাগানোয় সেরা উপায় কি, লেখা টি ভাল লাগলে তাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

উৎসঃঃ planetbangla

আপনার মন্তব্য করুন...