ভর্তি পরীক্ষা : ক্যালকুলেটর ছাড়া ফিজিক্সের ম্যাথ সমাধান করুন

কাজ, শক্তি ও ক্ষমতা: কাজের পরিমাণ নির্নয়,বিভব শক্তি ক্ষমতা নির্নয় যে ম্যাথগুলা দুই চার লাইনে করা যায় সেগুলা করতে পারো। দক্ষতা নির্নয় এ দশমিকে মান দেয়া থাকে বলে না করলেও চলে। বিভব শক্তি থেকে গতিশক্তির রূপান্তর, কাজ শক্তি উপপাদ্য, ধনাত্মক -ঋণাত্মক কাজ, ঘর্ষন বল ব্যাপারগুলাতে নিজের ধারনা পরিস্কার করে নাও।

মহাকর্ষ: “G” এর মান দেয়া থাকলে ক্যালকুলেটর ছাড়া অসম্ভব।ম্যাথ কম করলেও হবে এখান থেকে। মুক্তিবেগ, কেপলারের সুত্র,অভিকর্ষ কেন্দ্র, সুর্য পৃথিবীর ভর-ঘনত্ত, ভূপৃষ্ঠের বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরন, ভু অভ্যান্তরে কিংবা উপরের দিকে গেলে “g” এর মানের পরিবর্তন ব্যাপারগুলা গুরুত্ব দিয়ে পড়ো।

সরল ছন্দিত স্পন্দন: কৌনিক বেগ, কৌনিক ত্বরন, কম্পাঙ্ক নির্নয় পর্যায়কাল নির্নয়ের ম্যাথগুলা দেখা যায়। দোলনকাল নির্নয় এর ক্ষেত্রে বর্গমুল বের করতে হয় যা ক্যালকুলেটর ছাড়া করা যায়না, তাই না করলেও চলে। সরল স্পন্দিত ছন্দনের বিভিন্ন রাশিগুলার প্রকাশ একক,সরল দোলকের সুত্রাবলী, “L-t^2” লেখচিত্র সম্পর্কে ধারনা বাড়াও।

স্থিতিস্থাপকতা: পীরন বিকৃতি কিংবা পয়সনের অনুপাতের পিচ্চি ম্যাথগুলা দেখা যায়। ইয়ং এর গুণাঙ্ক নির্নয় একটু টাফ হয়ে যায় ক্যালকুলেটর ছাড়া।স্থিতিস্থাপকতার সবগুলা রাশির মান একক মাত্রা,বিভিন্ন রকমের পীড়ন, বিকৃতি, গুণাঙ্ক সমূহ, এবং গ্রাফগুলা ভাল করে দেখে রাখো।

বই এর যত্তগুলা গ্রাফ আছে, সবগুলার মানে বুঝার চেষ্টা করো। বিভিন্ন সুত্রের গানিতিক প্রকাশ, যেগুলা ধ্রুবক আছে সবগুলা মান মুখস্ত করার চেষ্টা করো।

ত্রিকোণমিতির প্রাথমিক ধারনা : এই চ্যাপ্টারের ম্যাথগুলা করতে ক্যালকুলেটর লাগেনা বললেই চলে। বিগত বছরের প্রশ্নগুলার দিকে নজর দিলেই বুঝা যায় এমন ম্যাথ কখনো আসে নাই এই চ্যাপ্টার থেকে যা করতে ক্যালকুলেটর লাগে। তাই এই চ্যাপ্টারের জন্য আগের মতই পড়াশুনা করো।

সংযুক্ত ও যৌগিক কোনের ত্রিকোনমিতিক আলোচনা : কথা একটাই, সূত্র বাদ দেয়া যাবেনা। ছোট বড় যত সুত্র আছে সব মুখস্ত, পরে অন্যকথা।সুত্র ব্যাবহার করেও অনেক ম্যাথ করা যায় যাতে ক্যালকুলেটর লাগেনা।SIN & COS এর যেসব মান ক্যালকুলেটর ছাড়া একদমি বের করা যায় না সে ম্যাথগুলো বাদ। COS 390*COS 420 + SIN(-300)*SIN(-330) এর মান বের করার জন্য কি ক্যালকুলেটর লাগবেই?? না এটা ক্যালকুলেটর ছাড়াই করা যায়।

বৃত্তিয় ফাংশন ও তাদের লেখচিত্র: এই চ্যাপ্টার থেকে আগে কখনই দুইটা প্রশ্নও আসে নাই। তবে এবার যেহেতু ক্যালকুলেটর ছাড়া পরীক্ষা হচ্ছে কিছুটা গুরত্ত দেয়া যেতে পারে। বিভিন্ন ফাংশন যেমন sin(x), sin(2x), tan(x) ইত্যাদি ফাংশনগুলার গ্রাফ কেমন হয় আইডিয়া রাখা ভাল। গ্রাফের বৈশিস্ট সমূহ দেখে রেখো।

ত্রিকোণমিতিক সমীকরন: এখানে ক্যালকুলেটর লাগেনা বললেই চলে। তবে” পরীক্ষার সময়” যেহেতু কমাইছে, সেক্ষেত্রে একেবারে কঠিন বা ঝামেলার ম্যাথগুলা বাদ দিয়ে একটু সহজ ম্যাথগুলার দিকে নজর দাও।
cos(2x)=sin(2x), 4sin(x)cos(x)=root(3), হলে “x” এর মান কত, এই টাইপের সহজ ম্যাথগুলা দেখে যেতে পারো।

এরপরেও আগে যা পড়ছ দেখো, তবে চ্যাপ্টার এর সহজ ম্যাথগুলা যেগুলা অনেক তাড়াতাড়ি ক্যালকুলেটর ছাড়াই করা যায় সেগুলার দিকে ভালভাবে নজর দাও। ইনশাল্লাহ, তুমিই পারবে!!

আপনার মন্তব্য করুন...